একনজরে ব্লগ এর সেরা কিছু টিপস 

 

একনজরে ব্লগ এর সেরা কিছু টিপস ( Some of the best blogging tips at a glance )

ব্লগিং করে আপনি মাসে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনার শুধু আর্টিকেল রাইটিং এর উপর দক্ষতা থাকতে হবে। প্রপার SEO করে আর্টিকেল লিখতে পারলে আপনি চাইলে আরও বেশি পরিমাণ আয় করতে পারবেন। ব্লগিং বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে তার মধ্যে ব্যক্তিগত ব্লগ, সহযোগী ব্লগ বা গ্রুপ ব্লগ, মাইক্রোব্লগিং, কর্পোরেট এবং সাংগঠনিক ব্লগ, একত্রিত ব্লগ ইত্যাদি আরো বিভিন্ন ধরনের ব্লগ পাবেন। তবে বাংলাদেশে জনপ্রিয় ব্লগ হলো ব্যাক্তিগত ব্লগ।

 

১৯৯০ এর দশকের শেষের দিকে ব্লগের উত্থান এবং বৃদ্ধি ওয়েব প্রকাশনা সরঞ্জামের আবির্ভাবের সাথে মিলে যায় যা এইচটিএমএল বা কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এর সাথে খুব বেশি অভিজ্ঞতা না থাকা অ-প্রযুক্তিগত ব্যবহারকারীদের দ্বারা বিষয়বস্তু পোস্ট করার সুবিধা দেয় । পূর্বে, ওয়েবে বিষয়বস্তু প্রকাশ করার জন্য এইচটিএমএল এবং ফাইল ট্রান্সফার প্রোটোকলের মতো প্রযুক্তির জ্ঞানের প্রয়োজন ছিল এবং তাই প্রথম দিকের ওয়েব ব্যবহারকারীরা হ্যাকার এবং কম্পিউটার উৎসাহী হওয়ার প্রবণতা দেখায়। 

 

২০১০-এর দশকে, বেশিরভাগই ইন্টারেক্টিভ ওয়েব ২.০ ওয়েবসাইট, যা দর্শকদের অনলাইনে মন্তব্য করতে দেয় এবং এই ইন্টারঅ্যাক্টিভিটিই তাদের অন্যান্য স্ট্যাটিক ওয়েবসাইট থেকে আলাদা করে।  সেই অর্থে, ব্লগিংকে একটি রূপ হিসাবে দেখা যেতে পারেসামাজিক নেটওয়ার্কিং পরিষেবা । প্রকৃতপক্ষে, ব্লগাররা শুধুমাত্র তাদের ব্লগে পোস্ট করার জন্য সামগ্রী তৈরি করে না বরং প্রায়ই তাদের পাঠক এবং অন্যান্য ব্লগারদের সাথে সামাজিক সম্পর্ক গড়ে তোলে।

ব্লগ কি?

ব্লগ কি? ( What is a blog? )

 

মূলত ব্লগ একটি ইংরেজী শব্দ। যার আভিধানিক অর্থ হলো ভার্চুয়াল ডায়েরী অথবা ইন্টারনেটে ব্যক্তিগত দিনলিপি। পক্ষান্তরে এই ইংরেজি ”Blog” শব্দটি আবার ”Weblog” এর সংক্ষিপ্ত রূপ। ১৯৯৭ সালে জোম বার্গার নামে একজন মার্কিন নাগরিক সর্বপ্রথম ”Weblog” শব্দটি উদ্ভাবন করেন। পরবর্তীতে, ১৯৯৯ এর এপ্রিল বা মার্চের দিকে ‘পিটার মেরহোলজ’ তার নিজস্ব ব্লগ পিটার্ম ডট কমে কৌতুক করে ‘weblog’ শব্দটিকে ভাগ করে ‘blog’ বলে সম্বোধন করেন। তারপর থেকে ‘blog’ শব্দটির ব্যাবহার প্রসার ঘটতে থাকে।

 

 ব্লগ (Blog) এমন এক ধরণের ওয়েবসাইট যেখানে আপনার লিখিত পোস্ট বিপরীত কালানুক্রমিক ক্রমে উপস্থাপিত হয় (নতুন কন্টেন্টটি প্রথম প্রদর্শিত হয়)। ব্লগ বিষয়বস্তু প্রায়শই এন্ট্রি বা “ব্লগ পোস্ট” হিসাবে উল্লেখ করা হয়। একটি ব্লগ হলো আপনার একটি পার্সোনাল ডায়েরির মতোই, যেখানে আপনি আপনার মনের কথা লিখতে পারবেন। আমাদের বানানো ব্লগ এবং তাতে লেখা আমাদের আর্টিকেল বা লেখ, ইন্টারনেটের মাধ্যমে লোকেদের ভিজিট করে পড়তে পারবেন।

 

ব্লগার কাকে বলে? ( What is blogger? )

 

যিনি বা যারা ব্লগ পোস্ট তৈরি করে তাকে বা তাদের ব্লগার বলে। 

বাংলাদেশে অনেক নামকরা ব্লগার আছে। তাদের মধ্যে কিছু ব্লগারের নাম দেখুন। বাংলাদেশের সেরা ব্লগার

 

১) Avijit Roy

 

২) Asif Mohiuddin

 

৩) Ahmedur Rashid

 

৪) Chowdhury

 

৫) Ahmed Rajib Haider

 

৬) Bonya Ahmed

 

৭) Sunny Sanwar

 

৮) Shahidul Alam

 

৯) Shahadat Hossain

 

১০) MSI Sakib

 

বাংলাদেশে এমন আরও অনেক আছে যারা ব্লগিং করে মাসে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করে। আপনিও করতে পারবেন তাই দেরি না করে কাজ শুরু করে দিন।

বাংলাদেশে জনপ্রিয় ব্লগ সাইট

বাংলাদেশে জনপ্রিয় ব্লগ সাইট ( Popular blog site in Bangladesh )

 

বাংলাদেশে এখন অনেক জনপ্রিয় ব্লগ সাইট আছে আজকে আমরা কয়েকটি জনপ্রিয় ব্লগ সাইট সম্পর্কে জানবো।

 

বাংলা টেক ব্লগ লিস্ট: Bangla Tech Blog List:

 

১) পিসি বিল্ডার বিডি

 

২) টেকটিউনস

 

৩) ট্রিক বিডি

 

৪) বাংলাদেশ গেমার

 

৫) টেক শহর

 

৬) বাংলাটেক

 

৭) নেট কথা

 

৮) টেকনোবঙ

 

৯) ওয়্যারবিডি

 

১০) টিউনারপেজ

 

ইসলামী ব্লগ লিস্ট:

 

বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ইসলামী ব্লগ লিস্ট দেখুন।

 

১)  বাংলা হাদিস

 

২) মাসিক আলকাউসার

 

৩) হাদিস

 

৪) ইসলামী প্রশ্নোত্তর

 

৫) ইসলামিক আলো

 

৬) আহলে হক্ক

 

৭) ইমাম বাতায়ন

 

ব্লগিং করে মাসে কতো টাকা আয় করা যায় How much money can be earned per month by blogging

 

ব্লগিং করে আপনি মাসে ২০ হাজার থেকে ১ লাখ টাকাও আয় করতে পারবেন তবে আপনাকে সর্বপ্রথম ধর্য ধরতে হবে।

 

আপনাকে বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় কয়েকটি ব্লগ এর মাসিক আয় দেখায় তাহলে বুঝবেন।

 

১) টেকটিউনস – প্রতিদিন আয় $৫০ ডলার

 

২) টেকটিউনস বিডি – প্রতিদিন আয় $৩০ ডলার

 

৩) ট্রিক বিডি – প্রতিদিন আয় $৪০ ডলার

 

৫) বিস্ময় – প্রতিদিন আয় $১৪ ডলার

 

৬) বাংলা টেক ২৪ – প্রতিদিন আয় $১৬ ডলার

 

৭) বাংলা টেক – প্রতিদিন আয় $১৩ ডলার

 

৮) সফল ফ্রিল্যান্সার – প্রতিদিন আয় $১০ ডলার।

 

এবার আশাকরি বুঝতে পারছেন ব্লগিং করে মাসে কতটাকা আয় করা যায়।

 

ব্লগ একাউন্ট কিভাবে খুলবো How to open a blog account

 

ব্লগ একাউন্ট খুলতে আপনাকে কিছু নিয়ম অনুসরণ করতে হবে। তাছাড়া ব্লগ একাউন্ট খুলে খুবই সহজ কাজ।

 

১. প্রথমে যে ইমেইল এ আপনি ব্লগ একাউন্ট খুলতে চান সেটি লগইন করুন।

 

২. যেকোনো ব্রাউজারে গিয়ে এই লিংকটি সার্চ করুন অথবা ক্লিক করুন ( blogger.com ) ।

 

৩. লিংকে গিয়ে সাইনআপ অপশন পাবেন সেখান থেকে সাইনআপ করে নিন।

 

৪. এবার আপনার প্রোফাইল নাম দিন। যে নামে আপনি আপনার ব্লগ পোস্ট লিখতে চান অর্থাৎ আপনার নাম দিতে পারেন আবার ব্লগ টাইটেল দিতে পারেন।

 

৫. এবার আপনার ব্লগের টাইটেল দিন এবং আপনার ব্লগের একটি ইউনিক লিংক যোগ করুন। বাস হয়েগেলো আপনার ব্লগ। কিন্তু আরও একটু কাজ আছে যেমন SEO, থিম আপলোড । প্রিমিয়াম থিম ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন প্রিমিয়াম থিম।

 

আশাকরি বুঝতে পারছেন কিভাবে ব্লগ একাউন্ট খুলতে হয়। ব্লগ একাউন্ট খুলার কোনো নির্দিষ্ট নিয়ম নেই আপনি শুধু আপনার পছন্দ অনুযায়ী সবকিছু করবেন।

 

ব্লগ কিভাবে তৈরি করে How to Create a Blog

 

একটি ব্লগ থেকে মাসে হাজার টাকা ইনকাম করা যায় তার মানে এই না এটি খুব সহজ কাজ। ব্লগিং এর সবচেয়ে কঠিন কাজ হলো ব্লগ পোস্ট তৈরি করা। আপনি ভাবছেন পোস্ট তৈরি করা এমন কঠিন কি কাজ সহজেই লেখা যায়।

 

আসলে এটা কোনো সহজ কাজ নয় শুধু লিখলেই হবে না আপনার পোস্টটি যদি কেউ না পড়ে তাহলে সেই পোষ্টার কোনো দাম নেই। সবচেয়ে বড় বিষয় গুগল আপনার পোষ্টার মান দেখবে আপনি যে পোস্ট করেছেন সেটি গুগল থেকে কতজন ব্যাক্তি পড়ছে তবেই আপনার সাইটের জন্য গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রব হবে।

 

একটি মানসম্মত ব্লগ তৈরি করতে হলে প্রথমে আপনাকে সেই পোস্ট সম্পর্কে কি ওয়ার্ড রিসার্চ করতে হবে। বিভিন্নভাবে বিশ্লেষণ করে সেই কি ওয়ার্ডের উপর ভিত্তি করে ব্লগ পোস্ট তৈরি করুন দেখবেন এমনিতেই অরগানিক ভিজিটর আসবে।

 

গুগল অ্যাডসেন্স ছাড়াও আপনি ব্লগ থেকে আয় করতে পারবেন তবে এটিও সহজ কাজ নয় ধর্জ ধরে কাজ করে যান একদিন সফল হবেন ইনশাআল্লাহ।

 

ব্লগের জনক কে? Who is the father of the blog?

 

ব্লগ (Blog) হল এক ধরনের অনলাইন ব্যক্তিগত দিনলিপি বা ব্যক্তিকেন্দ্রিক পত্রিকা। ব্লগ শব্দটি ওয়েবব্লগের সংক্ষিপ্ত রূপ। যিনি ব্লগে পোস্ট করেন তাকে ব্লগার বলা হয়। ব্লগাররা প্রতিনিয়ত তাদের ওয়েবসাইটে কনটেন্ট যুক্ত করেন আর ব্যবহারকারীরা সেখানে তাদের মন্তব্য করতে পারেন। এছাড়াও সাম্প্রতিক কালে ব্লগ (Blog) ফ্রিলান্স সাংবাদিকতার একটা মাধ্যম হয়ে উঠছে। সাম্প্রতিক ঘটনাসমূহ নিয়ে এক বা একাধিক ব্লগাররা তাদের ব্লগ হালনাগাদ করেন

 

ব্লগারের জনক জর্ন বার্গার ।

 

“ওয়েব্লগ” (WebBlog) শব্দটি ১৭ ডিসেম্বর, ১৯৯৭ সালে জর্ন বার্গার দ্বারা উদ্ভাবিত হয়েছিল।ওয়েব ব্লগ এর সংক্ষিপ্ত রূপ, “ব্লগ” শব্দটি পিটার মেরহোলজ দ্বারা উদ্ভাবিত হয়েছিল, যিনি ১৯৯৯ সালের এপ্রিল বা মে মাসে তাঁর ব্লগ Peterme.com-এর সাইডবারে ওয়েব্লগ (WebBlog) শব্দটি মজা করে ভেঙে ”ওই ব্লগ” লিখেছলেন। এর কিছুদিন পরে, পাইরা ল্যাবসের ইভান উইলিয়ামস “ব্লগ” শব্দকে বিশেষ্য এবং ক্রিয়া উভয় হিসাবে ব্যবহার করেন এবং “ব্লগার” শব্দটির উদ্ভাবন করেন, যেটি পরবর্তীতে জনপ্রিয় হয়ে উঠে।

 

ইসলামিক ব্লগ Islamic blog

 

বাংলাদেশে সম্প্রতি ইসলামিক ব্লগে বেশ জনপ্রিয়তা বেড়েছে। বাংলাদেশে জনপ্রিয় কিছু ইসলামিক ব্লগ নিচে দেওয়া হলো।

 

বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ইসলামী ব্লগ লিস্ট দেখুন।

 

১)  বাংলা হাদিস

 

২) মাসিক আলকাউসার

 

৩) হাদিস

 

৪) ইসলামী প্রশ্নোত্তর

 

৫) ইসলামিক আলো

 

৬) আহলে হক্ক

 

৭) ইমাম বাতায়ন

 

ব্লগার বাংলাদেশ Blogger Bangladesh

 

বাংলাদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় কয়েকটি ব্লগার এবং তাদের দৈনিক ইনকাম দেখুন।

 

১) Avijit Roy – ৪০ ডলার

 

২) Asif Mohiuddin – ৩০ ডলার

 

 ৩) Ahmedur Rashid – ৩০ ডলার

 

৪) Chowdhury – ২০ ডলার

 

৫) Ahmed Rajib Haider- ১৬ ডলার

 

৬) Bonya Ahmed- ১৪ ডলার

 

৭) Sunny Sanwar – ১৮ ডলার

 

৮) Shahidul Alam- ১৩ ডলার

 

৯) Shahadat Hossain – ১৬ ডলার

 

১০) MSI Sakib- ১০ ডলার

 

জনপ্রিয় কয়েকটি ব্লগ সাইটের দৈনিক আয়: Daily Income of Some Popular Blog Sites:

 

১) টেকটিউনস – প্রতিদিন আয় $৫০ ডলার

 

২) টেকটিউনস বিডি – প্রতিদিন আয় $৩০ ডলার

 

৩) ট্রিক বিডি – প্রতিদিন আয় $৪০ ডলার

 

৫) বিস্ময় – প্রতিদিন আয় $১৪ ডলার

 

৬) বাংলা টেক ২৪ – প্রতিদিন আয় $১৬ ডলার

 

৭) বাংলা টেক – প্রতিদিন আয় $১৩ ডলার

 

৮) সফল ফ্রিল্যান্সার – প্রতিদিন আয় $১০ ডলার।

 

ব্লগ থেকে আয় Income from blog

 

ব্লগ থেকে আপনি শুধু অ্যাডসেন্স নয়। আরও বিভিন্ন ভাবে আয় করতে পারবেন।

 

গুগল অ্যাডসেন্স Google Adsense

 

গুগল অ্যাডসেন্স ( google adsense) হলো গুগলের একটি অ্যাড ব্যবসা। ব্লগে অ্যাড প্রদর্শন করে যে টাকা আসে তারা একটি অংশ ব্লগাররা পায়।

 

অনান্য অ্যাড নেটওয়ার্ক Other ad networks

 

গুগল অ্যাডসেন্সের মতো আরো অনেক থার্ড পার্টি অ্যাড নেটওয়ার্ক আছে, এগুলো ব্যবহার করেও টাকা পাওয়া যায়।

 

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং Affiliate Marketing

 

আপনি যদি অ্যামাজন কিংবা আলীবাবা অথবা অন্য যে কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে চান তাহলে আপনার নিজের একটি ব্লগ প্রয়োজন। সেখান থেকে প্রোডাক্ট আপনার সাইটে স্পন্সর করে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয় করতে পারবেন।

 

ডিজিটাল মার্কেটিং  Digital Marketing

 

আপনার যদি কোন ব্যবসা বা সেবামূলক প্রতিষ্ঠান থাকে তাহলে ডিজিটাল মার্কেটিং করে এর প্রচার করতে পারবেন খুব সহজেই। ডিজিটাল মার্কেটিং হলো অন্যের প্রতিষ্ঠানকে প্রচার করা। আপনি অন্যের প্রতিষ্ঠান আপনার সাইট প্রচার করে আয় করতে পারবেন।

 

স্পন্সর sponsor

 

আপনার যদি কোন ব্লগ থাকে আর সেখানে ভালো ট্রাফিক আসে তাহলে আপনি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান কিংবা ব্যাক্তির স্পন্সর করে আয় করতে পারবেন। সেগুলো যেকোনো কিছু হতে পারে। ইউটিউব চ্যানেল, ইউটিউব ভিডিও, ওয়েবসাইট ইত্যাদি।

বাংলা ব্লগ সাইট Bengali blog site

 

জনপ্রিয় কয়েকটি বাংলা ব্লগ সাইট দেখে নিন তাহলেই বাংলা ব্লগ সম্পর্কে আপনার ধারণা সৃষ্টি হবে। বাংলা ব্লগ লিখে মাসে হাজার হাজার টাকা আয় করা সম্ভব। বাংলাদেশে অনেক নামকরা ব্লগার আছে যারা বাংলা ব্লগিং করে মাসে হাজার হাজার টাকা আয় করে।

 

বাংলা ব্লগ সাইট:

 

১) পিসি বিল্ডার বিডি

 

২) টেকটিউনস

 

৩) ট্রিক বিডি

 

৪) বাংলাদেশ গেমার

 

৫) টেক শহর

 

৬) বাংলাটেক

 

৭) নেট কথা

 

৮) টেকনোবঙ

 

৯) ওয়্যারবিডি

 

১০) টিউনারপেজ

 

মাইক্রো ব্লগিং ওয়েবসাইট কোনটি What is a micro blogging website?

 

এটি দেখার আগে চলুন জেনে নিই মাইক্রো ব্লগিং কি।

 

মাইক্রোব্লগিং হল ইন্টারনেটে ডিজিটাল কন্টেন্টের ছোট ছোট টুকরো পোস্ট করার অভ্যাস—যা হতে পারে টেক্সট, ছবি, লিঙ্ক, ছোট ভিডিও বা অন্যান্য মিডিয়া। মাইক্রোব্লগিং একটি পোর্টেবল যোগাযোগ মোড অফার করে যা অনেক ব্যবহারকারীর কাছে জৈব এবং স্বতঃস্ফূর্ত বোধ করে। এটি জনসাধারণের কল্পনাকে দখল করেছে, কারণ ছোট পোস্টগুলি যেতে যেতে বা অপেক্ষা করার সময় পড়া সহজ।

 

 বন্ধুরা এটিকে যোগাযোগ রাখতে ব্যবহার করে, ব্যবসায়িক সহযোগীরা মিটিংয়ে সমন্বয় করতে বা দরকারী সংস্থানগুলি ভাগ করতে এটি ব্যবহার করে এবং কনসার্টের তারিখ, বক্তৃতা, বই প্রকাশ বা সফরের সময়সূচী সম্পর্কে সেলিব্রিটি এবং রাজনীতিবিদরা (বা তাদের প্রচারক) মাইক্রোব্লগ ব্যবহার করে। অ্যাড-অন সরঞ্জামগুলির একটি বিস্তৃত এবং ক্রমবর্ধমান পরিসর অন্যান্য অ্যাপ্লিকেশনগুলির সাথে অত্যাধুনিক আপডেট এবং মিথস্ক্রিয়া সক্ষম করে। 

 

কার্যকারিতার ফলে প্রশস্ততা এই ধরনের যোগাযোগের জন্য নতুন সম্ভাবনাকে সংজ্ঞায়িত করতে সাহায্য করছে। এর উদাহরণগুলির মধ্যে রয়েছে টুইটার, ফেসবুক, টাম্বলার এবং সবচেয়ে বড়, ওয়েইবো ।

 

বাংলাদেশে বেশিরভাগ ব্লগিং ওয়েবসাইট মাইক্রো ব্লগিং। তার মধ্যে কয়েকটি সাইটের নাম দেওয়া হলো।

 

১) ইউনিক হিমু

 

২) বাঙালির সপ্ন

 

৩. বিডি নিউজ

 

৪. সময় নিউজ

 

৫. ট্রিক বিডি

 

ব্লগিং কত প্রকার ও কি কি

ব্লগিং কত প্রকার ও কি কি What are the types of blogging?

 

ব্লগিং অনেক প্রকার আছে তার মধ্যে জনপ্রিয় গুলো হলো:

 

ব্যক্তিগত ব্লগ Personal blog

 

ব্যক্তিগত ব্লগ হল একটি চলমান অনলাইন ডায়েরি বা ভাষ্য যা একটি কর্পোরেশন বা সংস্থার পরিবর্তে একজন ব্যক্তির দ্বারা লেখা। যদিও ব্যক্তিগত ব্লগের বিশাল সংখ্যাগরিষ্ঠতা খুব কম পাঠককে আকর্ষণ করে, ব্লগারের নিকটাত্মীয় পরিবার এবং বন্ধুবান্ধব ব্যতীত, অল্প সংখ্যক ব্যক্তিগত ব্লগ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে, এমনকি তারা লাভজনক বিজ্ঞাপন স্পনসরশিপকে আকৃষ্ট করেছে। অল্প সংখ্যক ব্যক্তিগত ব্লগার অনলাইন সম্প্রদায় এবং বাস্তব জগতে উভয় ক্ষেত্রেই বিখ্যাত হয়েছেন

 

সহযোগী ব্লগ বা গ্রুপ ব্লগ  Collaborative blogs or group blogs

 

এক ধরনের ওয়েবলগ যেখানে একাধিক লেখকের পোস্ট লেখা ও প্রকাশ করা হয়। বেশিরভাগ হাই-প্রোফাইল সহযোগী ব্লগগুলি একক ঐক্যবদ্ধ থিম অনুসারে সংগঠিত হয়, যেমন রাজনীতি, প্রযুক্তি বা অ্যাডভোকেসি৷ সাম্প্রতিক বছরগুলিতে, ব্লগস্ফিয়ার আরও সহযোগিতামূলক প্রচেষ্টার উত্থান এবং ক্রমবর্ধমান জনপ্রিয়তা দেখেছে, প্রায়শই একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট বজায় রাখার চাপ কমাতে এবং একটি বৃহত্তর পাঠকদের আকৃষ্ট করার জন্য ইতিমধ্যেই প্রতিষ্ঠিত ব্লগাররা সময় এবং সংস্থান সংগ্রহ করতে ইচ্ছুক।

 

একত্রিত ব্লগ

 

ব্যক্তি বা সংস্থা নির্দিষ্ট বিষয়, পণ্য বা পরিষেবার উপর নির্বাচিত ফিডগুলিকে একত্রিত করতে পারে এবং এর পাঠকদের জন্য সম্মিলিত ভিউ প্রদান করতে পারে। এটি পাঠকদের মানের বিষয়বস্তু অনুসন্ধান এবং সদস্যতা পরিচালনার পরিবর্তে পড়ার উপর মনোযোগ দিতে দেয়।

 

মাইক্রো ব্লগিং

 

মাইক্রোব্লগিং হল ইন্টারনেটে ডিজিটাল কন্টেন্টের ছোট ছোট টুকরো পোস্ট করার অভ্যাস—যা হতে পারে টেক্সট, ছবি, লিঙ্ক, ছোট ভিডিও বা অন্যান্য মিডিয়া। মাইক্রোব্লগিং একটি পোর্টেবল যোগাযোগ মোড অফার করে যা অনেক ব্যবহারকারীর কাছে জৈব এবং স্বতঃস্ফূর্ত বোধ করে। এটি জনসাধারণের কল্পনাকে দখল করেছে, কারণ ছোট পোস্টগুলি যেতে যেতে বা অপেক্ষা করার সময় পড়া সহজ।

 

কর্পোরেট এবং সাংগঠনিক ব্লগ

 

একটি ব্লগ ব্যক্তিগত হতে পারে, যেমন বেশিরভাগ ক্ষেত্রে, অথবা এটি ব্যবসার জন্য বা অলাভজনক সংস্থা বা সরকারি উদ্দেশ্যে হতে পারে। অভ্যন্তরীণভাবে ব্যবহৃত ব্লগ, এবং শুধুমাত্র একটি ইন্ট্রানেটের মাধ্যমে কর্মচারীদের জন্য উপলব্ধ তাদের কর্পোরেট ব্লগ বলা হয় । সংস্থাগুলি অভ্যন্তরীণ কর্পোরেট ব্লগগুলি ব্যবহার করে যা একটি কর্পোরেশনে যোগাযোগ, সংস্কৃতি এবং কর্মচারীদের ব্যস্ততা বাড়ায় । অভ্যন্তরীণ কর্পোরেট ব্লগগুলি কোম্পানির নীতি বা পদ্ধতি সম্পর্কে সংবাদ যোগাযোগ করতে, কর্মচারী এসপ্রিট ডি কর্পস তৈরি করতে এবং মনোবল উন্নত করতে ব্যবহার করা যেতে পারে । 

 

ওয়েব ট্রাফিক কি? What is web traffic?

 

ওয়েব ট্রাফিক হল একটি ওয়েবসাইটে দর্শকদের দ্বারা পাঠানো এবং প্রাপ্ত ডেটার পরিমাণ । ১৯৯০-এর দশকের মাঝামাঝি থেকে, ওয়েব ট্রাফিক ইন্টারনেট ট্রাফিকের সবচেয়ে বড় অংশ । এই ফলাফল দর্শকের সংখ্যা এবং তারা কত পৃষ্ঠা পরিদর্শন করে তার দ্বারা নির্ধারিত হয়। সাইটগুলি তাদের সাইটের কোন অংশ বা পৃষ্ঠাগুলি জনপ্রিয় এবং কোনও আপাত প্রবণতা আছে কিনা তা দেখতে আগত এবং বহির্গামী ট্র্যাফিক নিরীক্ষণ করে, যেমন একটি নির্দিষ্ট পৃষ্ঠা বেশিরভাগই একটি নির্দিষ্ট দেশের লোকেরা দেখে। এই ট্র্যাফিক নিরীক্ষণ করার অনেক উপায় আছে, এবং সংগৃহীত ডেটা স্ট্রাকচার সাইটগুলিকে সাহায্য করতে, নিরাপত্তা সমস্যাগুলি হাইলাইট করতে বা ব্যান্ডউইথের সম্ভাব্য অভাব নির্দেশ করতে ব্যবহার করা হয়।

  • Leave a Comment